নোবেলকে ‘জেলে পাঠানোর হুমকি’ দিয়েছিলেন জেমস!

সারেগামাপা’র এবারের আয়োজনে বাংলাদেশের মাঈনুল ইসলাম নোবেল দ্বিতীয় রানারআপ হয়েছেন। স্বাভাবিকভাবেই নোবেল ভক্তদের অনেকেই হয়েছেন অবাক এবং নাখোশ। তা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে নানান প্রতিক্রিয়া। এরই মধ্যে যেন ‘কথার বোমা’ ফাটালেন ‘নোবেলম্যান’ ক্যাপ্টেন!

নোবেল জানান, সারেগামাপা’র একটি পর্বে জেমসের বিখ্যাত গান ‘পাগলা হাওয়া’ গেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সে এপিসোডে প্রচার হয়েছিল ‘রূপালি গিটার’! তার গাওয়া গানটিই টেলিকাস্ট হয়নি। কেন হয়নি? এই প্রশ্নের জবাবে নোবেল বলেন, ‘জেমস ভাই তার ম্যানেজারকে দিয়ে ফোন করান এবং বলেন, গানটা যেন টেলিকাস্ট না হয়। আমাকে জেলে পাঠানোর হুমকিও দেয়া হয়।’

নোবেল বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে উনাকে আমি খুবই শ্রদ্ধা করি। তিনি আমার একজন আইডল। তার কাছ থেকে এ ধরনের হুমকি-ধমকি সত্যিই অপ্রত্যাশিত। আমি উনার ছেলের বয়সী। এর পরও জেমস ভাইয়ের প্রতি আমার শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা কখনোই কমবে না।’

শেষ দিন নোবেল শেষ গান হিসেবে গেয়েছেন প্রিন্স মাহমুদের লেখা ও সুর করা আর জেমসের কণ্ঠে জনপ্রিয় হওয়া ‘বাংলাদেশ’ গানটি। এর আগে অনুষ্ঠানের শুরুতে তিনি আরো গেয়েছেন আইয়ুব বাচ্চুর ‘সেই তুমি’ এবং প্রতুল মুখোপাধ্যায়ের ‘আমি বাংলায় গান গাই’ গান দুটি। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়েছে, জাতীয় সংগীতের পর ‘বাংলাদেশ’ গানটাই আমাদের দেশকে রিপ্রেজেন্ট করে। তাছাড়া ‘আমি বাংলায় গান গাই’ দুই বাংলাকেই রিপ্রেজেন্ট করে। আমি খুবই আবেগী মানুষ, বিশেষ করে দেশ ও ভাষার ক্ষেত্রে। আবেগ নিয়েই গান দুটি গেয়েছি। পাঁচ মাস আগেই ‘বাংলাদেশ’ গানটা করতে পারতাম, রেখে দিয়েছি ফাইনালে উঠলে গাইব বলে।’

তবে যে যাই বলুক, সারেগামাপা’র পুরো জার্নি নিয়ে নোবেল খুশি। নোবেলের কথায় বাংলাদেশের ঘরে ঘরে নোবেল রয়েছে। সবাই চ্যাম্পিয়ন। নোবেল জানালেন, তিনি সকলের দোয়া ও ভালোবাসা নিয়ে নতুন পথ চলতে চান।

ডেইলি বাংলাদেশ

Loading...

About চিফ ইডিটর

View all posts by চিফ ইডিটর →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.