সেঞ্চুরি করে ফিরলেন মোস্তাফিজ

পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) ১৪তম ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে পেশওয়ার জালমি ও লাহোর কালান্দার্স। প্রথমে টসে জিতে ১০০ রানে গুঁটিয়ে যায় মোস্তাফিজের লাহোর কালান্দার্স। জবাবে কোনো উইকেট না হারিয়ে সহজে পায় তামিম ইকবালের পেশওয়ার জালমি।

শারজায় প্রথমে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে দারুণ শুরু করে দুই ওপেনার ফখর জামান ও ব্রান্ডন ম্যাককালাম। ৪ ওভার ২ বলের সময় কাটা পরেন ব্রান্ডন ম্যাককালাম। তখন দলীয় রান ৪২। ব্যক্তিগত ৩০ রানের মাথায় হাসান আলীর হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন ওপেনার ফখর জামান। দুই ওপেনারের বিদায়ের পর কেউ আর দুইয়ের কোটা পূর্ণ করতে পারেনি। সবাই ছিলেন আসা যাওয়ার মাঝে। ফলে ১৭ ওভার ২ বল মোকাবেলা করে সবকটি উইকেট হারায় মোসআফিজের দল। আর তাত সেঞ্চুরি অর্থাৎ ১০০ রান সংগ্রহ করে মাঠ ছাড়ে লাহোর কালান্দারর্স। অন্যদিকে, এটা ছিল মোস্তাফিজের শেষ ম্যাচ। ‘নিদাহাস’ ট্রপির জন্য দেশের পথ ধরবেন মোস্তাফিজ।

ছোট লক্ষ তাড়া করতে নেমে সহজ জয় পায় তামিম-সাব্বিরের দল। ব্যাট হাতে যেমন অসহায় ছিলেন মোস্তাফিজরা, তেমনি বল হাতেও ছিলেন অসহায়। ফলে পেশওয়ার জালমির দুই ওপেনার তামিম-আকমলের হাত ধরে কোন উইকেট না হারিয়ে সহজ জয় পায় তামিমরা। ১৩.৪ ওভারেই জয় তুলে নেয় দলটি। ৩৫ বলে ৪ চারে ৩৭ রান করে অপরাজিত থাকেন তামিম। আর ৪৭ বলে ৭ চার ও ২ ছক্কায় ৫৭ রানের হার না মানা বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন আকমল।

পেশওয়ার জালমির হয়ে হাসান আলী এবং ডওসন নেন ৩টি করে উইকেট। এছাড়া ২টি উইকেট নেন ওহাব রিয়াজ এবং উইকেট নেন সামিন গুল।

ফলে পয়েন্ট টেবিলের তলানীতে লাহোর কালান্দার্স। পিএসএল সিজন ৩ এ চারবারের মুখোমুখিতে সবকটিতে হেরেছে ব্রেন্ডন ম্যাককালাম নেতৃত্বাধীন দলটি। অন্যদিকে পেশওয়ার জালমির অবস্থান পাঁচ বারের মুখোমুখিতে ৩টি ম্যাচে জয় লাভ করেছে।

Loading...

About চিফ ইডিটর

View all posts by চিফ ইডিটর →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.