জাফর ইকবালের ওপর হামলা, আ’লীগ নেতা আটক

ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর হামলাকারী ফয়জুর রহমান ফয়জুলের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তার মামাকে আটক করেছে র‌্যাব।

শনিবার (৩ মার্চ) রাতে সিলেটের কুমারগাও এলাকার শেখ পাড়ায় ফয়জুরের বাসায় তল্লাশি করে কাউকে পায়নি পুলিশ। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার এক মামাকে আটক করে নিয়ে যায় র‌্যাব।

জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুর রহমান জানান, রাত ১টার দিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ফয়জুলদের প্রতিটি কক্ষে তল্লাশি অভিযান চালান। এসময় চারটি কক্ষ থেকে কয়েকজনের জাতীয় পরিচয়পত্র, বই, ল্যাপটপ ও একটি ছোরাসহ বিভিন্ন ধরনের আলামত সংগ্রহ করেন। কয়েকটি মোবাইল নম্বর পাওয়া গেছে। তবে ওই বাড়িতে কারও ছবি পাওয়া যায়নি।

আটককৃত ফয়জুলের মামা- সুনামগঞ্জ জেলা কৃষক লীগের যুগ্ম আহবায়ক বলে জানা যায়।

উল্লেখ্য, শনিবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি) ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠান চলাকালে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালকে পেছন থেকে মাথায় ছুরিকাঘাত করে ফয়জুর রহমান ফয়জুল নামে ২৫ বছর বয়সী এক তরুণ। এরপর তাকে সিলেটের ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

পরে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) আনা হয়েছে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালকে। তার চিকিৎসায় ৫ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে।

এ ঘটনায় শনিবার (৩ মার্চ) দিবাগত রাতে জালালাবাদ থানায় পুলিশ বাদী হয়ে একজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়।

কে এই হামলাকারী

হামলাকারীর নাম ফয়জুর রহমান ফয়জুল (২৫)। বর্তমানে সে র‌্যাবের হাতে আটক রয়েছে। ঘটনার পর পুলিশ ও র‌্যাব ফয়জুলকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পারে যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশে টুকেরবাজার এলাকায় পরিবারের সঙ্গে থাকতো সে। তার বাবা মাওলানা আতিকুর রহমান স্থানীয় একটি মহিলা মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করেন। ফয়জুলদের বাড়ি সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায়। বছর দুয়েক আগে তার বাবা টুকেরবাজার এলাকায় জমি কিনে বাড়ি নির্মাণ করেন।

ফয়জুলরা তিন ভাই, সে সবার ছোট। অন্য দুভাইয়ের নাম আবুল ও হাসান। প্রতিবেশীরা জানিয়েছে, এই পরিবারটি স্থানীয়দের সঙ্গে মেলামেশা করতো না। এমনকী ফয়জুল স্থানীয় মসজিদে নামাজও পড়তো না। তার লেখাপড়ার বিষয়েও প্রতিবেশীরা কিছুই জানাতে পারেনি। এদিকে, জাফর ইকবালের ওপরে হামলার পর ফয়জুলের পরিবারের সদস্যরা ঘরে তালা মেরে পালিয়ে গেছে।

দেশজুড়ে নিন্দার ঝড়

এছাড়া ড. জাফর ইকবালের ওপর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে প্রকৃত দোষীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া, আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পক্ষ থেকেও নিন্দা জানানো হয়েছে।

বিডি২৪লাইভ

Loading...

About চিফ ইডিটর

View all posts by চিফ ইডিটর →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *