রায়ের পর অনেকটাই ফাঁকা ঢাকা

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া তারেক রহমানসহ অন্যদের ১০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

রায়কে ঘিরে জন সাধারণের মধ্যে ছিল চাপা আতঙ্ক। চতুর্দিকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কড়া নিরাপত্তা ও রায়কে কেন্দ্র বিগত কয়েকদিন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতাদের পক্ষে-বিপক্ষে পাল্টাপাল্টি বক্তব্যের কারণে সবার মধ্যে এক ধরনের ভীতি কাজ করছে। শুধু রাজধানীতে নয়, রায়কে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতাদের কথার উত্তেজনায় উদ্বেগ ছড়িয়েছিল দেশজুড়েই।

খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই অঘোষিত হরতালের আবহ বিরাজ করছে রাজধানীতে। সড়কগুলোতে যান চলাচলা প্রায় বন্ধ ছিল। তেমনি রায় পরবর্তী সময়ে রাজধানীর সড়কগুলো ছিল প্রায় ফাঁকা, খুব বেশি প্রয়োজন ছাড়া কেউ রাস্তায় বের হননি। সড়কগুলোতে যান চলাচল অনেকটাই কম দেখা গেছে। গণপরিবহন, প্রাইভেটকার বা ব্যক্তিগত গাড়ির সংখ্যাও কম। বেশির ভাগ দোকান ছিল বন্ধ। সব মিলিয়ে রায় পরবর্তীতে রাজধানীতে অনেকটা থমথমে ভাব দেখা গেছে।

Dhaka-2

যানজট আর জনজটের নগরী ঢাকা এখন অনেকটাই ফাঁকা। সড়ক ও পাড়া-মহল্লার অলিগলির অধিকাংশ দোকান বন্ধ রয়েছে। উদ্বেগ উৎকণ্ঠার মধ্যে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া মানুষ বের হচ্ছে না। এছাড়া অফিস ও প্রয়োজনীয় কাজ শেষ করে উৎকণ্ঠার মধ্যে দ্রুতই বাসায় ফিরতে দেখা গেছে অনেককেই। রাজধানীর আজিমপুর, ধানমন্ডি, সাইন্সল্যাব, শাহবাগ, কারওয়ান বাজার, ফার্মগেট, মিরপুর ও মহাখালী ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে। এদিকে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থায় রয়েছে। সকাল থেকেই নিরাপত্তার চাঁদরে ঢেকে ফেলা হয় গোটা রাজধানী।

হাবিবুর রহমান নামের একজন বেসরকারি চাকরিজীবী রাজধানীর সাইন্সল্যাবে অপেক্ষা করছিলেন গণপরিবহনের জন্য। তিনি বলেন, আজ রায় হয়েছে, পরবর্তী সময়ে কী হয় না হয় তাই তাড়াতাড়ি অফিস থেকে বের হয়েছি বাসায় ফেরার জন্য। যাব মিরপুর কিন্তু অনেকক্ষণ অপেক্ষা করেও বাস পাচ্ছি না, রাস্তাঘাট অনেকটাই ফাঁকা, মানুষও নেই তেমনি বাসও নেই। এদিকে আজিমপুর থেকে মিরপুরগামী সেফটি বাসের দেখা গেল হাতে গোনা কয়েকজন যাত্রী। এ বিষয়ে কথা হয় বাসটির চালক রমজান আলীর সঙ্গে। তিনি বলেন, রাস্তায় মানুষ নেই বললেই চলে। রায়ের কারণে কি হয়- না হয় সেই ভয়ে রাস্তাঘাট পুরোটাই ফাঁকা। সেজন্য বাসে যাত্রীও কম। আতঙ্ক থাকার কারণে অনেক চালক তো রাস্তায় বাস নামায়নি। সব মিলিয়ে রাস্তাঘাট ফাঁকা।

এদিকে রায় ঘোষণার পর আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনগুলোকে সড়কে সড়কে শোডাউন দিতে দেখা গেছে। এছাড়া রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে সতর্ক অবস্থানে আছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

 

Jagonews

Loading...

About চিফ ইডিটর

View all posts by চিফ ইডিটর →

1 thought on “রায়ের পর অনেকটাই ফাঁকা ঢাকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *